Wanderlust : Land of the Thunder Dragon – Part I

আমার ব্লগ শুরুর পর থেকে, আমি ট্র্যাভেলগ লিখেছি তিনবার। একবার আমার প্রথম একা ট্রেক করার, দুই যখন ভাইরা মিলে ড্রাইভ করে দীঘা গেলাম, আর তিন যখন গত বছর বন্ধুরা মিলে পুরী-ভূবনেশ্বর ঘুরে এলাম। তো পুরীটা ছাড়া, আমি ব্লগে লিখেছি সারাদিনের অভিজ্ঞতা, সন্ধেবেলায় এসে। আর সারাদিনের ঘোরাঘুরির পর, মাথা আর হাত দিয়ে যা বেরিয়েছে, ঠিক তাই …

Continue reading Wanderlust : Land of the Thunder Dragon – Part I

তরঙ্গ – শেষ পর্ব

সোমনাথের ঘুম ভাঙে, তখন ঠিক সকাল সাতটা। মেসবাড়ির তার ঘরটা ছোট্ট; একদিকে একটা খাট সেটার পাশেই একটা টেবিল পাতা, তার পড়াশোনার জন্য। অন্যদিকে একটা টেবলে একটা ইলেক্ট্রিক হিটার, চায়ের কৌটো, কয়েকটা বাসন কোসন। আড়মোড়া ভেঙে উঠে ঘরের বাইরে বেড়োতেই মেসমালিক কয়ালবাবুর সাথে দেখা। তিনি একগাল হেসে বললেন, -“কি হে সোমনাথ! তোমাদের গর্ত খোঁড়ার আর কতদিন …

Continue reading তরঙ্গ – শেষ পর্ব

তরঙ্গ – নবম পর্ব

-“২০২২ সালে ক্ষমতায় আসে এক ফ্যাসিস্ট সরকার, যারা ‘বৈদিক’ সভ্যতার আদলে ভারতের সমাজব্যবস্থা গড়ে তোলার পরিকল্পনা করে, ফলাফল বর্ণাশ্রম চালু করা; জন্মপরিচয় দেখে মানুষের ইচ্ছের বিরুদ্ধে…” -“আপনি একটু চুপ করবেন, প্লিজ?” -সোমনাথ ধরা গলায় বলে ওঠে… কিছুক্ষণ চুপ করে থাকেন ডক্টর সামন্ত। তারপর বলেন, -“আমার কথাটা শোনো, সোমনাথ… তুমিই পারো গোটা ব্রহ্মাণ্ডকে বাঁচাতে, শুধু তাই …

Continue reading তরঙ্গ – নবম পর্ব

তরঙ্গ – অষ্টম পর্ব

সোমনাথ শুয়ে ছিল চিৎ হয়ে। মাথার ওপর পাখাটা ঘুরছে বন বন করে। সোমনাথের কপালে বিন্দু বিন্দু ঘাম জমাট বেঁধে বড় বড় ঘামের ফোঁটা তৈরী করতে শুরু করেছে। হাতের উল্টোপিঠ দিয়ে কপালের ঘাম মুছে সোমনাথ পাশ ফিরে শোয়। আর পাশ ফিরেই মেঘার মুখটা দেখতে পায়। চোখ বন্ধ, দুটো হাত জোড় করে বালিশ আর গালের মাঝখানে রাখা; …

Continue reading তরঙ্গ – অষ্টম পর্ব

Shameful… or Shameless?

Disclaimer: If you’re a regular reader of my blog, I thank you with all my heart for your continuous support, and in a world, which is ruled by cheesy, horrific and eye candy content, Click-bait and Fake News, you spend your time reading my pesky blog. And I think it’s high time I expressed my …

Continue reading Shameful… or Shameless?

তরঙ্গ – সপ্তম পর্ব

-“চা খাও… ভালো লাগবে… মনের ওপর দিয়ে অনেক ধকল গেছে…” সোমনাথ উঠে টানা পাঁচ মিনিট কোনও কথা বলেনি। এবার সে মুখ খুলল… -“আমার এরকম লাগছে কেন… মনে হচ্ছে…” -“মনে হচ্ছে দু’টো জীবন একসাথে বেঁচে আছ, তাই না?” সোমনাথ মাথা নাড়ে। -“যখন কেউ অতীতে যায়, তখন সে রাস্তাটা একটাই। কারণ, তার বর্তমানের সাপেক্ষে তার অতীত আগেই …

Continue reading তরঙ্গ – সপ্তম পর্ব

তরঙ্গ – ষষ্ঠ পর্ব

সোমনাথের ঘুম ভাঙে, তখন ঠিক সকাল সাতটা। তার মেসবাড়ির ঘরটা ছোট্ট; একদিকে একটা খাট, সেটার পাশেই একটা টেবিল পাতা তার পড়াশোনার জন্য। অন্যদিকে একটা টেবলে একটা ইলেক্ট্রিক হিটার, চায়ের কৌটো, কয়েকটা বাসন কোসন। আড়মোড়া ভেঙে উঠে ঘরের বাইরে বেড়োতেই মেসমালিক কয়ালবাবুর সাথে দেখা। তিনি একগাল হেসে বললেন- -“কি হে সোমনাথ! তোমাদের গর্ত খোঁড়ার আর কতদিন …

Continue reading তরঙ্গ – ষষ্ঠ পর্ব

তরঙ্গ – পঞ্চম পর্ব

বেশীক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি সোমনাথকে। সে গিয়ে দাঁড়াবার ক’য়েক সেকেন্ডের মধ্যেই একটা গাড়ি এসে দাঁড়ায়। ডক্টর সামন্তই বসে আছেন চালকের আসনে। সোমনাথ গাড়িতে উঠে বসলেই, তিনি রওনা দেন। -“কি, নার্ভাস লাগছে? মনে হচ্ছে কোথায় নিয়ে যাচ্ছি?” -“না… মানে…” -“ঘাবড়াবেন না মশাই… আপনার বিন্দুমাত্র ক্ষতি করবার ইচ্ছা আমার নেই। তবে আপনাকে আমার বিশেষ দরকার; আর আপনারও …

Continue reading তরঙ্গ – পঞ্চম পর্ব

তরঙ্গ – চতুর্থ পর্ব

সাধারণ এ-ফোর কাগজে প্রিন্ট করে, খুব এলোমেলো ভাবে হাতে কেটে তৈরী কার্ডটা। যেন কেউ খুব তাড়াহুড়ো করে তৈরী করেছে, হয়তো তাকেই দেওয়ার জন্য।  রাতের খাওয়ার পর সেটাই ভালো করে নেড়ে চেড়ে দেখছিল সোমনাথ। বলাই বাহুল্য বাড়ি ফেরার সময়টা তার খুব একটা শান্তির হয়নি। বিরিয়ানি কিনতে গিয়ে, আরসালানের দোকানটা কেন খুঁজে পেল না সেটা নিয়ে এখনো …

Continue reading তরঙ্গ – চতুর্থ পর্ব

তরঙ্গ – তৃতীয় পর্ব

-“তখন থেকে কি এত চিন্তা করছ বল তো ? খাবারে মন নেই, কথাও বলছ না আজ… কি হয়েছে সমু ?” -মেঘার কথায় চটক ভাঙে সোমনাথের। বাড়ি ঢুকে থেকে মনটা বড্ড অস্থির হচ্ছিল। খাবার কিনে আনেনি বলে খাবার অর্ডার দিয়েছিল। কিন্তু একা একা ফ্ল্যাটে নিজেকে কেমন অসহায় মনে হচ্ছিল তার। সকাল থেকে একের পর এক ঘটে …

Continue reading তরঙ্গ – তৃতীয় পর্ব